৪০০ বছর পর বিরল এক ইতিহাসের সাক্ষী হতে চলেছে বিশ্ব

0
68
Spread the love

এক বিরল ইতিহাসের সাক্ষী হতে চলেছে বিশ্ব। প্রায় ৪০০ বছর পর ২১ ডিসেম্বর সৌরমণ্ডলের দুই গ্রহ বৃহস্পতি ও শনি পরষ্পরের খুব কাছে চলে আসবে। সোমবার সূর্যাস্তের ঠিক পর কোনো উপকরণের মাধ্যম ছাড়াই সাধারণ মানুষ এই দৃশ্য দেখতে পারবে।

তাছাড়া এ ডিসেম্বর মাসেই মহাকাশে দেখা গিয়েছে উল্কাপাত। তার পর সূর্যগ্রহণ। সেই সাথে আবারো এক মহাজাগতিক অতিবিরল দৃশ্যের সাক্ষী হতে চলেছে বিশ্ব। বৃহস্পতি আর শনির যুগলবন্দি। আজ সোমবার সন্ধ্যা ৬ঃ৩০ নাগাদ এই দুই গ্রহ এতই কাছে চলে আসবে যে, আবহাওয়া অনুকূল থাকলে খালি চোখেও তা বোঝা যাবে। প্রায় ৪০০ বছর পর এমন ঘটনা ঘটছে, যা একজন মানুষ জীবদ্দশায় এক বারই দেখতে পারেন। বিজ্ঞানীরা একে বলছেন ‘গ্রেট কনজাংশন’ বা ‘বিরাট যুগলবন্দি’। বলছেন  তাই সোমসন্ধ্যায় চোখ থাকুক মহাকাশে।

শেষ বার হয়েছিল ১৬২৩ সালে। তখনও গ্যালিলিও জীবিত। টেলিস্কোপ আবিষ্কারের ১৩ বছর পরেই সেই ঘটনা ঘটেছিল। তবে সেটা ছিল জুলাই মাস, অর্থাৎ বর্ষাকাল। তার উপর তখন সূর্যও এই দুই গ্রহের খুব কাছে ছিল। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে মেঘলা আকাশ থাকায় ততটা স্পষ্ট হয়নি। সূর্য এত কাছে থাকায় খালি চোখে দেখা যায়নি। টেলিস্কোপের বয়স তখন মাত্র ১৩ বছর। হয়ত সেসময় হতাশ হতে হয়েছিল মহাকাশ বিজ্ঞানীদের।

সেই সব কারণে ৩৯৭ বছর পরের এই দুই গ্রহের যুগলবন্দি সব দিক থেকেই বিরল এবং এক অর্থে নজিরবিহীনও। এই প্রথম শীতকালে এত কাছে আসছে দুই গ্রহ। সোমবার আবার বছরের সবচেয়ে বড় দিন। তার উপর সৌরমণ্ডলের বৃহত্তম ও দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহের এমন বিরল মেলবন্ধন। ফলে মহাকাশপ্রেমী থেকে আমজনতা, সবার মধ্যেই কৌতূহল তুঙ্গে।

Leave a Reply