সিরাজগঞ্জের সবজি বাজারে আলু শূন্য

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: জেলায়  আড়ৎ ও খুচড়া বাজারগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে না নিত্যপ্রয়োজনীয় সবজি আলু। এতে বিপাকে পড়েছে ক্রেতারা। আড়ৎদাররা বলছে আমদানী নেই, খুচড়া বিক্রেতারা বলছে সরকারি নির্দেশ্যে আলুর মূল্য ৩০ টাকা নির্ধারন করা হয়। এরপর থেকেই সিরাজগঞ্জে আলু শূন্য হয়ে পড়েছে বাজারগুলো।

আজ মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সকালে শহরের গোলাশা আড়ত, বড় বাজার, স্টেশন বাজার, কালিবাড়ী বাজারসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে আলু শূন্যের দৃশ্য ছিলো চোখে পড়ার মতো।

এস.এস রোড (বড় বাজার) খুচড়া সবজি বিক্রিতা ইদ্রিস আলী বলেন, সরকারি ঘোষণা মোতাবেক আলুর মূল্য নির্ধারন করা হয় ৩০ টাকা। কিন্তু আড়ৎ থেকে কিনে বাজার পর্যন্ত আসতে খরচ হয় ৩৮ টাকা। তাহলে এই আলু বিক্রি করা আমাদের অসম্বব। শুধু তাই নয়, বেশি দামে আলু বিক্রি করলে ভ্রাম্যমাণ আদালত জরিমানা করছে।

বাজারে সবজি ক্রেতা দুলাল উদ্দিন ও নুর হোসেন, আলাউদিনসহ অনেকেই বলেন, নিত্যপণ্যের মধ্যে আলু একটি জনপ্রিয় সবজি। যা সব তরকারীতেই মানানসই। কিন্তু অদৃশ্যকারণ ও সিন্ডিকেটের কারণে বিপাকে পড়েছে সাধারণ ক্রেতারা।

দেখা যায়, দোকানগুলোতে সামনে আলু না থকলেও কোন ক্রেতা আলু চাহিলে অধিকাংশ দোকানিরা জিজ্ঞাস করে আপনার কতটুকু আলু লাগবে। তখন ক্রেতার চাহিদানুযাই অন্যত্র থেকে আলু এনে দেন।

গোলাশা রোড়ের মেসার্স তন্ময় এন্টার প্রাইজের সত্ত্বাধিকারী শরিফুল ইসলাম জানান, সরকারি ঘোষণা মোতাবেক আলুর মূল্য নির্ধারন করা হয় ৩০ টাকা। পর্যাপ্ত পরিমানে আলু কোল্ড স্টোরে রয়েছে। কিন্তু আলুর মূল্য সরকার নির্ধারণ করায় কমদামে কোল্ড স্টোরের মালিকরা আলু বাজারজাত করছেন না। এজন্য মোকাম থেকে আমরা আলু সংগ্রহ করতে পারছি না। তাই আলু বাজারে নেই।

সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক (অতিরিক্ত) মো: তোফাজ্জল হোসেন জানান, ইতিমধ্যেই আলু ব্যবসায়ীরা জেলা প্রশাসক বরাবর মৌখিকভাবে অবগত করেছেন যে, আলু বেশি দামে ক্রয় করে কম দামে বিক্রি করা আমাদের সম্ভব না। তাই আমরা এখন আলু ক্রয় করছি না। আলুর মুল্য পুর্ণরায় নির্ধারন হলে আবার আমদানি করব।

প্রথমবার্তা২৪.কম/রোমান

Leave a Reply