ফরিদপুর প্রতিনিধি : ফরিদপুরের সালথায় গ্রাম্য দলপক্ষ নিয়ে দুই দলের সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার মাঝারদিয়া ইউনিয়নের খলিশপুটি গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নগরকান্দা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, খলিশপুটি গ্রামের দলপক্ষ নিয়ে সোমবার বিকালে ইউপি সদস্য সাহেব আলী মোল্যার সমর্থক হেমায়েত ফকির সাবেক ইউপি সদস্য জাহিদ মোল্যাকে গালাগালি করে। এরই সুত্রধরে মঙ্গলবার সকালে দুই দলের সমর্থকরা দেশিয় অস্ত্র ঢাল-কাতরা, সড়কি-ভেলা, রামদা ও ইটপাটকেল নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সংঘর্ষে উভয় দলের অন্তত ১৫ জন আহত হয়। আহতদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নগরকান্দা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

এবিষয়ে ইউপি সদস্য সাহেব আলী মোল্যা বলেন, একটি মেয়েলি ঘটনা নিয়ে মাস খানেক ধরে জাহিদ মেম্বারের সাথে বিরোধ চলে আসছে। সোমবার বিকালে সেই ঘটনা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এরই জেরধরে সকালে সংঘর্ষ বাধে। এতে আমার সমর্থক ১০জন আহত হয়েছে। এরমধ্যে মোকলেছ মোল্যা, আনিস শেখ, ইসমোতারা বেগমকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও শাহাদৎ মোল্যা, মিজানুর মোল্যা, আব্দুল হাই মোল্যা, জসিম মোল্যা, ইনছুর মোল্যা, রোমান মোল্যাকে নগরকান্দা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

সাবেক ইউপি সদস্য জাহিদ মোল্যা বলেন, পুর্ব শত্রæতার জেরধরে সাহেব মেম্বারের সমর্থকদের সাথে আমার সমর্থকদের সংঘর্ষ বাধে। এতে আমার দলের ইউনুছ মোল্যা, টিটুল মোল্যা, শরিফুল মোল্যাসহ ৫জন আহত হয়। এরমধ্যে তিনজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকি দুইজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকা শান্ত রাখতে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
এহসান উদ্দিন রানা, ফরিদপুর
০৫-০৫-২০

Leave a Reply