মোড়ে মোড়ে শীতের পিঠা

0
58

দরজায় কড়া নাড়ছে শীত। ভোরে শিশির জমতে দেখা যাচ্ছে লতাপাতা আর গাছপালায়। এ তো শীতেরই সংকেত। হুটহাট আভাওয়ার পরিবর্তন মনে করিয়ে দিচ্ছে শীতের কথা। বিকেলের হিম শীতল বাতাস জানান দিচ্ছে শীত আসলো বলে।

ষড় ঋতুর এ বাংলাদেশে শীত অনেক তাৎপর্যময়। পুরো বছর জুড়ে শীত থাকে না। ঠান্ডার কাপুনী দিতে মাত্র ২/৩ মাসই অবস্থান করে শীত কাল। আগের দিন গুলোতে শীত আসতো আগস্ট সেপ্টেম্বরে। এখন শীত আসতে আসতে বছর শেষ হয়ে যায়। নভেম্বরে হালকা ছোঁয়া লাগলেও এদেশে মানুষ পরিপূর্ণ শীতটাকে উপভোগ করতে পারে ডিসেম্বরে। যা আসতে এখনও ঢের দেরি।

তা সে যাই হোক এদেশের শীতের মূল আকর্ষণ পিঠা। পিঠা ছাড়া ভোজন রসিক বাংলার শীত যেন পরিপূর্ণ হয় না। শীতে পিঠা খাওয়ার রীতি গ্রাম-বাংলার চিরায়ত সংস্কৃতির অংশ। সেই রীতিতে পিছিয়ে নেই রাজধানীবাসীও।

শীতকে সামনে রেখে রাজধানীর পাড়া-মহল্লা ও বিভিন্ন রাস্তার পাশে পিঠার দোকান নিয়ে বসেছেন পিঠা বিক্রেতারা। এছাড়াও রাজধানীর বেইলি রোড, ফার্মগেট, গুলশান, বসুন্ধরা, মিরপুর, মোহাম্মদপুর, খিলক্ষেত, উত্তরা ও পুরান ঢাকার নাজিরাবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে হরেক রকমের পিঠার দোকানও বসেছে। তবে মানুষের কাছে চিতই ও ভাপা পিঠার কদর বেশি।

অল্প পুঁজি ও কম পরিশ্রমে ভালো লাভ হওয়ায় শতাধিক নারী-পুরুষ পিঠা ব্যবসায় নেমেছেন। দোকানগুলোয় পিঠার পাশাপাশি রয়েছে হরেক রকমের ভর্তাও। এসব পিঠার দোকানে অফিসগামী কিংবা বাড়ি ফেরার পথে অনেককেই দেখা যায় পিঠার স্বাদ নিতে। হাতের নাগালে পছন্দের শীতের পিঠা খেতে পেরে খুশি শহুরে মানুষগুলো।

 

Leave a Reply