মিয়ানমারে গণতন্ত্র ও শান্তি প্রত্যাশা করে বাংলাদেশ

মিয়ানমারে গণতন্ত্র ও শান্তি প্রত্যাশা করে বাংলাদেশ
Spread the love

প্রথমবার্তা২৪.কম ডেস্কঃ বাংলাদেশ প্রত্যাশা করে মিয়ানমারে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া বহাল থাকবে। সেই সঙ্গে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখার আশাবাদ প্রকাশ করেছে।

সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) মিয়ানমারের জরুরি অবস্থা সম্পর্কে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়।

সোমবার অং সান সুচি ও অন্যান্য রাজনৈতিক নেতাদের গ্রেফতার করার পরে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী নিশ্চিত করেছে যে তারা দেশটির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে।

এ সম্পর্কে পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) সকালে জানিয়েছেন, একটু ধৈর্য ধরুন। একটু পরেই মিয়ানমারের বর্তমান অবস্থা নিয়ে একটি প্রেস রিলিজ দেওয়া হবে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রেস রিলিজে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ দৃঢ়ভাবে গণতান্ত্রিক নীতি অনুসরণ করে এবং প্রচার করে। বাংলাদেশ প্রত্যাশা করে মিয়ানমারে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া এবং সাংবিধানিক ব্যবস্থা বহাল থাকবে। কাছের ও বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী হিসাবে আমরা মিয়ানমারে শান্তি ও স্থিতিশীলতা দেখতে চাই।

আমরা মিয়ানমারের সাথে পারস্পরিক কার্যকরি সম্পর্কের বিকাশে অবিচল থেকেছি এবং বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায়, নিরাপদ এবং টেকসই প্রত্যাবাসন জন্য মিয়ানমারের সাথে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা আশা করি যে এই প্রক্রিয়াগুলো অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply