ভারতের অযোধ্যায় মোগল আমলে তৈরি বাবরি মসজিদের মামলার রায় পড়তে শুরু করেছেন সুপ্রিম কোর্টে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। প্রধান বিচারপতি ছাড়াও বেঞ্চে রয়েছেন বিচারপতি এসএ বোবদে, ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, অশোক ভূষণ এবং এস আব্দুল নাজির। ইতিমধ্যেই আদালতে পৌঁছে গিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

শনিবার (০৯ নভেম্বর) শীর্ষ আদালতের এক নম্বর ঘরে রায় চলছে। ১০টা ১৫ মিনিটে সেই ঘর খুলে দেওয়া হয়। তার পর বিচারপতিরা সেই ঘরে প্রবেশ করেন। এর পর রায়ের কপিতে সই করে রায় পড়তে শুরু করেন প্রধান বিচারপতি।

শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের আর্জি খারিজ করেছে সুপ্রিম কোর্ট। একই সঙ্গে নির্মোহী আখড়ার আর্জিও খারিজ বিচারপতিদের। রায়ে বলা হয়েছে, ৩-৪ মাসের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারকে বিসেষ স্কিম তৈরি করার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। যাতে বিতর্কিত জমি মন্দির পক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয় ও অন্য পাঁচ একর জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে দেওয়া হয়। সেখানে তৈরি হতে পারে মসজিদ।

১৮৫৫ সাল পর্যন্ত প্রমান পাওয়া যায় যে হিন্দুরা ওই স্থানের অন্দরেও প্রবেশ করেছে। ১৮৫৬ পর্যন্ত নামাজ পড়ার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায় না। পরবর্তীকালে প্রার্থনার জন্য ব্যবহার করা হত সেই মসজিদ।হিন্দুরা মনে করে ডোমের নীচেই ছিল রামের জন্মস্থান।

প্রসঙ্গত, গত ৬ অগস্ট থেকে কোনও বিরতি ছাড়া টানা শুনানি চলেছে অযোধ্যা মামলার। তার পর ১৬ অক্টোবর রায়দান সংরক্ষিত রেখেছিল শীর্ষ আদালত। অবশেষে শুক্রবার আচমকাই সুপ্রিম কোর্ট জানায়, শনিবার রায়দানের কথা। তার আগে নিজের চেম্বারে ডেকে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যসচিব এবং ডিজির সঙ্গে কথা বলেন প্রধান বিচারপতি।

আগামী ১৭ নভেম্বর দেশের প্রধান বিচারপতির পদ থেকে অবসর নিচ্ছেন রঞ্জন গগৈ। তিনি আগেই জানিয়েছিলেন, অবসর নেওয়ার আগেই তিনি অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলার রায় দিয়ে যেতে চান। সেই অনুযায়ী তাঁর নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চে প্রতিদিন শুনানি হয়েছে। গত ১৬ অক্টোবর এই মামলার শুনানির পর রায় সংরক্ষিত রাখেন প্রধান বিচারপতি।

Leave a Reply