বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা রাজীব কোটি টাকা খরচ করে আবার যুবলীগে ফেরেন

0
201
Spread the love

সন্ত্রাসবাদ, দখলদারিত্ব ও চাঁদাবাজির অভিযোগে গ্রেফতার তারেকুজ্জামান রাজীবকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তিনি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের নির্বাচিত কাউন্সিলর। এর আগেও তাকে সংগঠন থেকে বহিস্কার করা হয়েছিল তবে কোটি টাকা চাঁদা দিয়ে পুনরায় যুবলীগে যোগ দেন।

যুবলীগের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, কাউন্সিলর হওয়ার সময় রাজীব মোহাম্মদপুর থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন। নির্বাচনে জয়ী হওয়ার কিছুদিন পর তার লোকজন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা পাইন আহমেদকে মারধর করে। ঘটনাটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কানে যাওয়ার পর তাকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়। এর কিছুদিন পর বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করে তাকে ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। কেন্দ্রীয় যুবলীগের পদচ্যুত দপ্তর সম্পাদক আনিসুর রহমানের মাধ্যমে এক কোটি টাকা দিয়ে পদটি কিনে নেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে চলমান শুদ্ধি অভিযানের শুরু থেকেই আত্মগোপনে ছিলেন রাজীব। শনিবার (১৯ অক্টোবর) রাতে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। গ্রেফতার হওয়ার পর তাকে দ্বিতীয়বারের যুবলীগ থেকে বহিস্কার করা হলো।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লে. ক. সারোয়ার বিন কাশেম বলেন, রাজীবের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজি এবং দখলদারিত্বের মতো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। অভিযানে তার বসুন্ধরার বাসা থেকে একটি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন এবং তিন রাউন্ড গুলি জব্দ করা হয়। তিনি অস্ত্রের কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here