বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতোই বাংলাদেশেও বন্ধু দিবস পালিত হয়। বন্ধু দিবস বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন তারিখে পালন করা হয়। বাংলাদেশে আগস্টের প্রথম রোববার দিবসটি পালন করা হয়। কিন্তু কখনো ভেবে দেখেছেন কি, কেন এই বন্ধু দিবস? আজ জেনে নিন বন্ধু দিবস পালনের কারণ-

জানা যায়, প্রথমত হলমার্ক কার্ডের প্রতিষ্ঠাতা ‘জয়েস হল’ ১৯১৯ সালে আগস্টের প্রথম রোববার বন্ধু দিবস হিসেবে সবাইকে কার্ড পাঠাতেন। দ্বিতীয়ত ১৯৩৫ সালে আমেরিকার সরকার এক ব্যক্তিকে হত্যা করে। দিনটি ছিল আগস্টের প্রথম শনিবার। তার প্রতিবাদে পরদিন ওই ব্যক্তির এক বন্ধু আত্মহত্যা করেন।

সূত্র আরও জানায়, ১৯৫৮ সালের ২০ জুলাই ‘বিশ্ব বন্ধু দিবস’র প্রস্তাব করেন ড. আর্টেমিও ব্র্যাচো। যখন তিনি তার বন্ধুদের সাথে নদী তীরবর্তী শহর পুয়ের্তো পিনাস্কোতে বসে ডিনার করছিলেন।

১৯৯৭ সালে জাতিসংঘ বিশ্বময় বন্ধুত্বের আলাদা অবস্থানে নিজেদের নিয়ে যায়। ফলে ২০১১ সালের ২৭ এপ্রিল জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ৩০ জুলাইকে অফিসিয়াল ইন্টারন্যাশনাল ফ্রেন্ডশিপ ডে ঘোষিত হয়। তবে ভারত, বাংলাদেশসহ কিছু দেশে আগস্টের প্রথম রোববার বন্ধুত্ব দিবস উদযাপন করে।

Leave a Reply