নন্দীগ্রামে ভোটের প্রচারে গিয়ে হামলার শিকার মমতা

নন্দীগ্রামে ভোটের প্রচারে গিয়ে হামলার শিকার মমতা
Spread the love

প্রথমবার্তা২৪.কম ডেস্কঃ নন্দীগ্রামে ভোটের প্রচারে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এ সময় তিনি আহত হয়েছেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাথা, মুখ, পায়ে আঘাত লেগেছে। এর ফলে সমস্ত কর্মসূচি বাতিল করে রাতেই কলকাতা ফিরে এসেছেন তৃণমূল প্রধান। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ হামলাকে চক্রান্ত বলে অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল।

মমতার অভিযোগ, ‘চার-পাঁচজন মিলে চক্রান্ত করে ধাক্কা দিয়েছে। আশপাশে ছিল না কোনও পুলিশ।’ এ ঘটনায় শোরগোল পড়েছে পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক মহলে।

জানা গেছে, মনোনয়ন পেশের পর নন্দীগ্রামের রানিচকে একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখান থেকে ফেরার সময় গাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে মানুষের সঙ্গে কথা বলছিলেন তিনি। সেসময় প্রচুর লোক তাঁকে ঘিরে ছিলেন। সেসময় আচমকা কয়েকজন ধাক্কা মারেন বলে অভিযোগ। ধাক্কায় গাড়ির দরজা বন্ধ হয়ে মুখ থুবড়ে পড়েন তিনি। বাঁ পায়ে গুরুতর চোট লেগেছে তাঁর। মুখ থুবড়ে পড়ায় হাতে মাথাতেও চোট পেয়েছেন তিনি। যন্ত্রণা এতটাই বাড়ে যে সমস্ত কর্মসূচি বাতিল করে কলকাতা ফেরার সিদ্ধান্ত নেন। বেশ কিছুটা রাস্তা আসার পর যন্ত্রণায় এতটাই ছটফট করতে থাকেন নেত্রী, যে নিরাপত্তারক্ষীরা তাঁকে পাঁজাকোলা করে তুলে গাড়ির পিছনের সিটে নিয়ে আসেন। নেত্রীর পা সাংঘাতিক ফুলে গিয়েছে খবর। তাঁকে নিয়ে আসা হচ্ছে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে।

পশ্চিমবঙ্গের এবারের বিধানসভা নির্বাচনে আলোচনার কেন্দ্রে রয়েছে নন্দীগ্রাম। এখানে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার বিপরীতে বিজেপির হয়ে লড়ছেন মমতার একসময়ের ঘনিষ্ঠ সহচর ও শিষ্য শুভেন্দু অধিকারী।

Leave a Reply