হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ বাল্লা সীমান্তের টেকেরঘাট গ্রামে দু’দল চোরাকারবারীর মাঝে সংঘর্ষে ইয়াকুত (৪৫) নামের এক চোরাকারবারী নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও ৫ জন। এর মধ্যে রমজান আলীর ( ৪৮) অবস্থা গুরুতর। শনিবার রাত প্রায় ১০ টায় গাজীপুর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী গ্রাম টেকেরঘাটে এই ঘটনাটি ঘটেছে।
পুলিশ জানায়, রাত প্রায় ১০ টার সময় টেকেরঘাট গ্রামের কুখ্যাত চোরাকারবারী জমসের আলীর পুত্র ইয়াকুত ও একই গ্রামের আঃ খালেকের পুত্র রমজান আলীর মাঝে চোরাচালানের মালামাল কেনা-বেচা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এলাকা বাসি জানান গত কয়েক দিন যাবত রমজান এবং ইয়াকুতের মাঝে চলছিল ঝগড়া রজমান সন্দেহ করছে যে ইয়াকুত, রমজানের মালামল ভারতের পাচার কালে বিজিবিকে তথ্য দিয়ে তাদের অবৈধ মালামাল জব্দ করে।
বিজিবি নিকট জানতে চাইলে বিজিবি বলছেন ইয়াকুত এবং রমজান উভয়ই কেউ আমাদের বিজিবি সোর্স  নয় তারা প্রকৃত চোরাকারবারি বিষয়টি নিয়ে এক পর্যায়ে উভয়ের মাঝে সংঘর্ষ বাধলে উভয় পক্ষের ৫ জন আহত হয়েছে। এতে ইয়াকুত এবং রমজান গুরুতর আহত হয়। এলাকাবাসি গুরুতর আহত ইয়াকুত ও রমজানকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরন করেন। ইয়াকুত হাসপাতালে পৌছার পুর্বেই রাজার বাজার নামক স্থানে প্রাণ হারায়।
রমজানকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, রমজানের অবস্থা সংকটাপন্ন। সুত্র জানান, রমজান এবং ইয়াকুত ভারতে চুরি করতো। সাম্প্রতি সময়ে এরা চুরি চামাড়ি ছেড়ে চোরাচালানীতে যোগ দেয়। এরা স্থানীয় আসামপাড়া বাজার থেকে মটরসুটি, ছোলা, ছানার ডাল ও ইলিশ মাছ কিনে ভারতের ত্রিপুরাতে পাচার করত।

Leave a Reply