চারঘাটে ভোটকেন্দ্রে হাতবোমা বিস্ফোরণ

চারঘাটে ভোটকেন্দ্রে হাতবোমা বিস্ফোরণ
Spread the love

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীর চারঘাট পৌরসভা নির্বাচনের ভোটকেন্দ্রে হাতবোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। রোববার বেলা ১১টার দিকে সারদা থানাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। তবে এতে হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।

ঘটনার সময় আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী একরামুল হক এবং বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী জাকিরুল ইসলাম বিকুল ওই ভোটকেন্দ্রেই ছিলেন। তারা টেলিভিশন সাংবাদিকদের ইন্টারভিউ দিচ্ছিলেন। তখনই সামান্য দূরে ভোটারদের সারির পেছনে হাতবোমা দুটি নিক্ষেপ করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুটি হাতবোমার একটি বিস্ফোরিত হয় এবং অন্যটি অবিস্ফোরিত অবস্থায় পড়ে থাকে। পরে পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সদস্যরা অবিস্ফোরিত হাতবোমাটি উদ্ধার করে। এরপর সেটি নিষ্ক্রিয় করা হয়। হাতবোমার বিস্ফোরণের সময় অনেক ভোটার ভোটকেন্দ্র থেকে বেরিয়ে যান। কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

ভোটকেন্দ্রে হাতবোমা বিস্ফোরণের এই ঘটনার জন্য দুই প্রার্থী একে-অন্যকে দুষছেন। বিএনপি প্রার্থী জাকিরুল ইসলাম বিকুল বলেন, নৌকার প্রার্থীর সমর্থকেরা ভোটকেন্দ্র দখলে নিতে চায়। এ কারণে ভোটারদের আতঙ্কিত করে ভোটকেন্দ্র ফাকা করতে তারা হাতবোমার এই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন।

একই কথা বলেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী একরামুল হক। তিনি বলেন, এটা বিএনপি ও জামাত-শিবিরের ক্যাডারদের কাজ। তারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সাংবাদিকদের সামনেই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ রবিউল আলম বলেন, কারা হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন তা বলতে পারব না। তবে এ ধরনের একটা ঘটনা ঘটেছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

পৌরসভা নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে রাজশাহীর দুটি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। চারঘাট ছাড়া অন্যটি হলো জেলার দুর্গাপুর পৌরসভা। চারঘাটের এক কেন্দ্রে হাতবোমা বিস্ফোরণ ছাড়া আর কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। উৎসবমুখর পরিবেশেই ভোটাররা ভোট দিচ্ছেন।

Leave a Reply