হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার ঘটনায় করা মামলার রায়ে এক আসামি খালাস পেয়েছেন। রায়ে সার্বিকভাবে সন্তুষ্টি প্রকাশ করলেও পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী খালাস পাওয়া আসামির ব্যাপারে উচ্চ আদালতে আপিল করার পক্ষে।

তিনি বলেছেন, মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজানের খালাসের ব্যাপারে যেন রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আপিল করা হয় তার জন্য তিনি আবেদন জানাবেন।

আজ বুধবার দুপুরে কাবাডি ফেডারেশনের এস এ গেমসের জন্য পুরুষ ও নারী দলের নাম ঘোষণার অনুষ্ঠানে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন আইজিপি। তিনি বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের সভাপতি।

রাজধানীর গুলশানে হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলা ও নৃশংস হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে সাত আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও একজনকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

২৭ নভেম্বর ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জঙ্গিরা হলেন- হামলাকারীদের সংগঠনে ভেড়ানোর দায়ে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজিব গান্ধি, পরিকল্পনাকারীদের একজন আসলাম হোসেন ওরফে র‌্যাশ, গ্রেনেড সরবরাহকারী আবদুস সবুর খান ওরফে সোহেল মাহফুজ, হাদিসুর রহমান ওরফে সাগর, তথাকথিত ধর্মীয় প্রশিক্ষক রাকিবুল হাসান ওরফে রিগ্যান, শরিফুল ইসলাম এবং মামুনুর রশিদ রিপন।

অপরদিকে, অস্ত্র সরবরাহকারী হিসেবে অভিযুক্ত মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজানকে মামলা থেকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

২০১৬ সালের ১ জুলাই হোলি আর্টিজান বেকারিতে সশস্ত্র জঙ্গিরা হামলা চালিয়ে ২২ জনকে হত্যা করে। তাদের মধ্যে ইতালির নয়, জাপানের সাত, ভারতের এক, বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আমেরিকান এক, বাংলাদেশি দুজন নাগরিক এবং দুজন পুলিশ সদস্যও নিহত হন।

হামলার পেছনে ২১ জন জড়িত ছিলেন বলে জানা যায়। যাদের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১৩ জন নিহত হন।

Leave a Reply