prothombarta24

এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:
২১ মার্চ ২০২০ইং কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার কনফারেন্স রুমে স্থানীয় গনমাধ্যকর্মী, ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া, প্রিন্ট মিডিয়া, অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম প্রেস কনফারেন্স করেন।

প্রেস ব্রিফিং এ করোনাভাইরাস মোকাবেলায় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান (বিপিএম) জেলায় বিদেশ থেকে আগত বাংলাদেশ নাগরিক তথা কুড়িগ্রামে আসা প্রবাসী ও তাদের পরিবার এবং পরিবারের সস্পর্শে আসা মানুষদের বিষয়ে খোজ খবর রেখে তাদের নিয়ন্ত্রনে নিয়ে সচেতন করতে পুলিশের পাশাপাশি সাংবাদিক, সমাজকর্মী ও সচেতন নাগড়িকদের আন্তরিক হয়ে কাজ করার আহবান জানান।

ঈুলিশ সুপার আরও বলেন করোনাভাইরাস আতংকের চেয়ে গুজব ছড়াচ্ছে বেশী, তা প্রতিহত করতে সজাগ দৃষ্টি রাখার পরামর্শ দিয়ে ওসিদের, বাজার পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করার পায়তারা করা হতে পারে তা মাথায় রেখে সম্ভাব্য বাজার, গুদাম, ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান ও মজুতদারদের উপর নজরদারী চললেও তা বাড়াতে বলেন। কিছু কিছু বাজারে চাল ডাল, পেয়াজ সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়ানোর প্রবনতা লক্ষ্য করা গেছে। ইতিমধ্যে সকল থানার ওসিদের ব্রিফ করা হয়েছে, মজুতদারদের সাথে মুল্য বাড়ার কারনগুলো নিয়ে আলোচনা করে তা অযৌক্তিক বলে প্রমাণ করানো গেছে। ব্যবসায়ীগণ কথা দিয়েছেন তারা বাজার স্থিতিশীল রাখবেন।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে ও পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে কুড়িগ্রাম জেলাবাসীকে সেবা দেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। জেলা ম্যাজিস্ট্রেটগণ সহ প্রতিটি উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ম্যাজিস্ট্রেট) সহকারি ভুমি কমিশনারগণ যে কোন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ, বাজার তদারকি, আইনী কার্যক্রম চালাতে পুলিশ প্রশাসন সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে।

পুলিশ সুপার এই সময়ে গনমাধ্যম কর্মী, অনলাইন মিডিয়াকর্মী ও সমাজসেবী সংগঠনগুলোকে নিজ নিজ এলাকায় মানুষকে সচেতন করতে ও পুলিশ প্রশাসনের কার্যক্রম সম্পর্কে ইতিবাচক ধারনা দিতে কাজ করার আহবান জানান। গ্রাম পুলিশদের প্রাথমিক প্রশিক্ষন ও করনীয় সম্পর্কে ধারনা দিয়ে গ্রামে সজাগ দৃষ্টি ও গ্রামের মানুষদের সচেতনতা অর্জনে কাজে লাগানো হয়েছে। মোট কথা পুলিশ সামগ্রীক জনগোষ্ঠী কে করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখতে কিছু পদক্ষেপ নিতেই হচ্ছে। ভুলবুঝাবুঝি বা গুজবে কান দিয়ে নিজের ও নিজেদের পরিবারের ক্ষতি ডেকে আনবেন না বলে হুশিয়ার করেন।

জেলাবাসী ও বিদেশ ফেরত প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সহজভাবে নিন, আপনি বিদেশ থেকে এসেছেন এ ভাইরাস আমাদের দেশের নয়, করোনা সংক্রমিত বহির্বিশ্ব থেকে মানুষের শরীরে বহন করে নিয়ে আসা একটি ভাইরাস। আপনি বা আপনার পরিবার বিদেশ থেকে এসেছেন বলেই যে করোনা সাথে নিয়ে এসেছেন তা সঠিক নাও হতে পারে আবার অজান্তে আপনার শরীর তা বহন করে নিয়ে আসতেও পারে। তা নিশ্চিত হতেই এর উপসর্গ ১৪ দিনে স্পস্ট হয়। ফলে আপনি অসচেতন ও অসতর্ক হয়ে আপনার বাবা মা, স্ত্রী সন্তান ও প্রতিবেশীকেও এ ভাইরাসে আক্রান্ত করছেন। এ ভাইরাস বহন করে এনে আপনি সুস্থ হয়ে উঠলেন অথচ আপনার বৃদ্ধ মা বাবা কিংবা সন্তান এ ভাইরাসে নিরাময় না হয়ে মারা গেলেন তখন আপনি নিজেকে কি বলে বুঝাবেন?

পুলিশ সুপার হলরুমে আজকের কনফারেন্সে এই প্রতিপাদ্যকে জেলার সকল মানুষদের কাছে পৌছে দিতে এবং বিদেশ ফেরত বন্ধুদের আশ্বস্ত করতেই পুলিশ সাংবাদিক একসাথে কাজ করার গুরুত্বারোপ করেন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম।

উপস্থিত সাংবাদিক গনমাধ্যকর্মী ও ইলেকট্টনিক্স মিডিয়ার কর্মীদের করোনাভাইরাস নিয়ে গুজব ও বাজার পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম এর সভাপতিত্বে পুলিশ কনফারেন্স রুমে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) মেনহাজ-উল-আলম সহ এএসপি সার্কেল গণ, কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহফুজার রহমান, উলিপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেম, ডিবি র ওসি মোখলেছুর রহমান সহ অন্যান্য থানার অফিসার ইনচার্জ গন উপস্থিত ছিলেন।

প্রেস কনফারেন্স রুমে কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট আহসান হাবীব নীলু, সাংবাদিক শ্যামল ভৌমিক, এটিএন বাংলার কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ইউসুফ আলমগীর বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম কুড়িগ্রাম জেলা সভাপতি আবু জাফর সোহেল রানা, নিউজ২৪ এর হুমায়ুন কবীর সূর্য, প্রতিদিনবাংলারখবর সম্পাদক ও প্রকাশক আশিকুর রহমান সহ প্রিন্ট মিডিয়া ও ইলেকট্টনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply