করোনার টিকা নিলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী-সচিব

করোনার টিকা নিলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী-সচিব
Spread the love

প্রথমবার্তা২৪.কম ডেস্কঃ মহামারী মুক্তির প্রত্যাশা নিয়ে সারাদেশে শুরু হওয়া করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচির ১১তম দিনে টিকা নিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর সচিবালয় ক্লিনিকে টিকা নেন তিনি। মন্ত্রী ছাড়াও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষও করোনার টিকা নিয়েছেন।

টিকাগ্রহণ শেষে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘খুবই স্বাভাবিক, মনেই হয়নি যে টিকা নিলাম। বুঝতেই পারিনি কখন টিকা পুশ করেছে। কোনো ধরনের খারাপ কিছু মনে হওয়া বা ব্যথা পাওয়া এমন কিছুই না। অত্যন্ত সুন্দরভাবে টিকা দিয়েছেন। আমার ভ্যাকসিন নেয়ার তারিখ আগে ছিল জ্বরের কারণে আমি প্রথমদিন টিকা নিতে পারিনি। পরে আবার রেজিস্ট্রেশন ট্রান্সফার করে আজ টিকা নিলাম।’

মন্ত্রী আরো বলেন, সারাদেশে টিকাদান কার্যক্রম চলছে। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অগ্রাধিকার দিয়ে প্রথম ধাপেই টিকা দেওয়া হচ্ছে। বিভ্রান্তি ও অপপ্রচারে কান না দিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ সবাইকে করোনার টিকা নেয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আবদুল মান্নান এবং সচিবালয় ক্লিনিকের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াস চৌধুরী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

গত ২৭ জানুয়ারি কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের একজন নার্সকে টিকা দিয়ে দেশে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল অনুযায়ী তাদের পর্যবেক্ষণ করার পর ৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হয় সারাদেশে গণ টিকাদান।

বাংলাদেশে দেয়া হচ্ছে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা। প্রত্যেককে এই টিকার দুটি ডোজ দিতে হবে। প্রথম টিকা গ্রহণের আট সপ্তাহ পর দেয়া হবে দ্বিতীয় ডোজ।

Leave a Reply