আর্সেনালকে হারিয়ে দ্বিতীয় স্থানে লেস্টার সিটি

24

ম্যানেজার হিসেবে আর্সেনালের ডাগ-আউটে বসার হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করলেন উনাই এমেরি। তবু ছন্দহীন গানার্সরা। প্রিমিয়র লিগের শেষ চার ম্যাচে জয়হীন তাঁরা।

শনিবার অ্যাওয়ে ম্যাচে লেস্টার সিটি ২-০ গোলে হারাল আর্সেনালকে। ফলে আট পয়েন্ট পেছনে থেকে টপ ফোর থেকে ক্রমশ পিছু হটছে এমেরির ছেলেরা। স্বাভাবিকভাবেই ওয়েঙ্গারের উত্তরসূরী সাবেক পিএসজি ম্যানেজারের উপর চাপ যে আরেকটু বাড়ল, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

অন্যদিকে ঘরের মাঠে আর্সেনালকে হারিয়ে প্রিমিয়ার লিগে টানা চতুর্থ জয় তুলে নিল ‘দ্য ফক্স’। নিউক্যাসেলকে ৫ গোল, সাউদাম্পটনকে ৯ গোল দিয়ে প্রিমিয়র লিগে সর্বকালীন রেকর্ড ছোঁয়া লেস্টারের স্বপ্নের দৌড় চলছেই।

চলতি প্রিমিয়র লিগে লেস্টারের ফর্ম মনে করাচ্ছে ২০১৫-১৬ ক্লদিও রেনিয়ারির দলকে। লেস্টারের সাম্প্রতিক ফর্ম দেখে নিউক্যাসেল কিংবদন্তী অ্যালান শিয়ারার যেমন বলছেন, ‘ব্রেন্ডন রজার্সের ছেলেরা এবার চ্যাম্পিয়নের দাবিদার।’

কিং পাওয়ার স্টেডিয়ামে এদিন ম্যাচের প্রথমার্ধে ছিল গোলশূন্য। উইলফ্রেড এনদিদির শট ক্রসবারে প্রতিহত না হলে ফক্স’রা এগিয়ে যেতে পারত দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই। তবে ছন্দহীন গানার্সদের বিরুদ্ধে লেস্টার সেই ভুল শুধরে নেয় ৬৫ মিনিটেই।

বক্সের মধ্যে দুরন্ত মুভমেন্ট থেকে দলকে প্রথমবারের জন্য এগিয়ে দেন জেমি ভার্ডি। গোলটির পেছনে ইউরি টিয়েলেমান্স ও হার্ভি বার্নসের অবদান অস্বীকার করার নয়। যদিও আউবামেয়াংয়ের গোলে ম্যাচে এগিয়ে যেতেই পারত আর্সেনাল, তবে ৫৫ মিনিটে গোল আর গ্যাবন স্ট্রাইকারের মাঝে ভিলেন হয়ে দাঁড়ায় অফসাইড।

প্রথম গোলের সাত মিনিটের মধ্যেই ম্যাচে দ্বিতীয় গোল তুলে নেয় লেস্টার। ৭২ মিনিটে ভার্ডির জোরালো শট দূরন্ত ক্ষিপ্রতায় আটকে দিলেও ৭৫ মিনিটে ম্যাডিসনের জোরালো ভলি গোলে ঢোকার মুহূর্তে দাঁড়িয়ে দেখা ছাড়া কোনও উপায় ছিল না আর্সেনাল গোলরক্ষক বার্নড লেনোর।

এই গোলের সঙ্গে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করার পাশাপাশি লিগ টেবিলে দ্বিতীয়স্থানে উঠে আসে ব্রেন্ডন রজার্সের ছেলেরা। ১২ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট তাঁদের। অন্যদিকে ১২ ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠস্থানে থাকা গানার্সরা ক্রমশ পিছু হটছে টপ ফোর থেকে।

লিগের অন্য ম্যাচে ক্রিস্টাল প্যালেসকে ২-০ গোলে হারাল চেলসি। প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধে ব্লুজ’দের হয়ে গোল দুইটি করেন টনি আব্রাহাম ও ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচ।

এই জয়ের ফলে প্রিমিয়ার লিগে টানা ছয় ম্যাচ জিতে আপাতত তৃতীয় স্থানে ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের ছেলেরা। ১২ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে লেস্টারের সঙ্গে গোল পার্থক্যে তৃতীয় স্থানে তাঁরা।