রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে একমাত্র আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাই মহামারির মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে সরকার সহায়তা করেছে। ক্ষমতায় আওয়ামী লীগের সরকার না থাকলে অন্য যে কোনো শক্তি থাকলে মানুষকে সহায়তা না করে শুধু ফায়দা লুটার উপায় খুঁজত।

প্রধানমন্ত্রীভবিষ্যতে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে রাষ্ট্র পরিচালনায় পরবর্তী প্রজন্মের জন্য দিকনির্দেশনা তৈরির প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

গত বুধবার সকালে শেখ হাসিনা গণভবনে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম প্রেসিডিয়ামের সভায় সূচনা বক্তৃতায় বলেন, রাজনৈতিক দল হিসেবে একমাত্র আওয়ামী লীগেরই ইকোনমিক পলিসি আছে। সেটাকে মাথায় রেখেই কিন্তু আমরা কাজ করে যাচ্ছি। জাতির পিতার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ দেশের স্বাধীনতা এনে দিয়েছে। যেহেতু আমরা ক্ষমতায় আছি,  পরবর্তী প্রজন্ম শুধু বর্তমানেই নয়, ভবিষ্যতেও কীভাবে দেশ পরিচালনা করবে এবং দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাবে, তার উপায় বের করার দায়িত্বও আমাদেরই নিতে হবে। সে লক্ষ্যে আমাদের এখন থেকেই প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে তার বয়স ৭৪ বছর উল্লেখ করে সবাইকে মনে করিয়ে দেন যে, ‘আমি আর কতদিন দেশ চালাব? আমার তো ৭৪ বছর বয়স, আর কতদিন! সেটাও মাথায় রাখতে হবে। পরবর্তী প্রজন্মের জন্য দেশ পরিচালনা সম্পর্কিত একটা ফ্রেমওয়ার্ক, একটা ধারণাপত্র অথবা একটা দিকনির্দেশনা প্রস্তুত করতে হবে, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য থাকে যেন তারা পথ হারিয়ে না ফেলে।

Leave a Reply